Categories
লাইফ স্টাইল

মাত্র ৫ মিনিটে ডিম ও আটা দিয়ে বানিয়ে ফেলুন দুর্দান্ত স্বাদের বিকালের নাস্তা, শিখে নিন রেসিপি

সকালের জলখাবারে (Breakfast) বা বিকেলের টিফিনে (Tiffin) ভালো কিছু খাবার খেতে সকলের ইচ্ছে করে। কিন্তু হাজার কাজের মাঝে সবসময় দারুণ কোনো পদ তৈরি করা সম্ভব হয় না। এই সমস্যার সমাধান হিসেবে আজকে তাই আপনাদের সঙ্গে ভাগ করে নেবো এমন এক অভিনব ‘ডিম পরোটা’-র রেসিপি যা খুব কম সময়ে সামান্য কিছু জিনিস দিয়েই খুব সহজে বানিয়ে ফেলা যাবে।

•উপকরণ:
১)ডিম
২)নুন
৩)জল
৪)গরম মশলা গুঁড়ো
৫)গোলমরিচ গুঁড়ো
৬)ময়দা
৭)গাজর কুচি
৮)বাঁধাকপি কুচি
৯)পেঁয়াজকলি কুচি
১০)কাঁচালঙ্কা কুচি
১১)তেল

•প্রনালী:
প্রথমেই একটি মিক্সিং বোলে দুটো ডিম ভেঙে দিয়ে দিতে হবে। এরপরে ডিমের মধ্যে স্বাদ অনুযায়ী নুন দিয়ে ভালো করে ফেটিয়ে নিতে হবে। কিছুক্ষণ ধরে ডিম ফেটিয়ে নেওয়ার পর ওই পাত্রে ১/২ কাপ জল দিয়ে মিশিয়ে নিতে হবে। মিক্সিং বোলে এবারে ১/৪ চামচ গরম মশলা গুঁড়ো ও ১/৪ চামচ গোলমরিচ গুঁড়ো দিয়ে আবারও মেশাতে হবে, খেয়াল রাখতে হবে মশলা যেন দানা দানা হয়ে না থাকে।

এরপর মিক্সিং বোলের ডিমের মিশ্রণের মধ্যে অল্প অল্প ময়দা দিয়ে ভালো করে মিশিয়ে একটি ব্যাটার বানিয়ে নিতে হবে, ব্যাটারের মধ্যে পরিমাণ অনুযায়ী জল দিয়ে পাতলা করে নিতে হবে।

ব্যাটার তৈরি হয়ে গেলে তার মধ্যে একে একে কিছু পরিমাণ গাজর কুচি, কিছু পরিমাণ বাঁধাকপি কুচি, কিছু পরিমাণ পেঁয়াজকলি কুচি ও ইচ্ছে অনুযায়ী কাঁচালঙ্কা কুচি দিয়ে ভালো করে মেশাতে হবে। আপনারা চাইলে এর মধ্যে আপনাদের পছন্দের অন্যান্য সবজিও কুচি কুচি করে কেটে দিয়ে দিতে পারেন।

এবারে গ্যাসে ফ্রাইং প্যান বসিয়ে অল্প তেল ব্রাশ করে ১.৫-২ হাতা ব্যাটার দিয়ে দিতে হবে। গ্যাসের আঁচ কম রেখে পুরো ফ্রাইং প্যানে ব্যাটার ভালো করে ছড়িয়ে দিতে হবে। একদিক ভাজা হয়ে গেলে অপরদিকেও অল্প তেল ব্রাশ করে উল্টে দিতে হবে।

প্রত্যেকটি পরোটা এইভাবে উল্টেপাল্টে নেড়ে নিয়ে ভালো করে ভাজতে হবে। ভালো করে না ভাজলে যে সব সবজি দেওয়া হবে তা কাঁচাই থেকে যাবে। ভাজা হয়ে গেলে হাতা দিয়ে পরোটা মুড়িয়ে নিতে হবে। এক‌ই পদ্ধতিতে সম্পূর্ণ ব্যাটার থেকে যতগুলি সম্ভব হয় ততগুলি পরোটা ভেজে নিতে হবে। এবারে ফ্রাইং প্যান থেকে নামিয়ে নিয়ে গরম গরম পরিবেশন করে ফেলুন অভিনব এই ‘ডিম পরোটা’।

Categories
লাইফ স্টাইল

মাত্র এই কয়েকটা উপকরণ দিয়ে বানিয়ে ফেলুন দুর্দান্ত স্বাদের সকালের জলখাবার, শিখে নিন রেসিপি

সকালের ব্রেকফাস্ট কিংবা বিকেলে জলখাবার নিয়ে প্রায়শই বিভ্রান্তির সম্মুখীন হতে হয় বাড়ির কর্ত্রীদের। তাঁদের এই সমস্যার সমাধানে আজকের এই চটজলদি মুখরোচক পদটি। খুব কম উপকরণের সাহায্যে তৈরী হয়ে যাবে জিভে জল আনা রেসিপিটি।

উপকরণ :
১.ময়দা
২.নুন
৩.লঙ্কা গুঁড়ো
৪.হলুদ গুঁড়ো
৫.ধনে গুঁড়ো
৬.লঙ্কা কুচি
৭.ধনেপাতা কুচি
৮.সাদা তেল

প্রণালী :
একটি মিক্সিং বোলে ১ কাপ ময়দার সাথে স্বাদমতো নুন এবং জল মিশিয়ে ভালো করে ব্যাটার তৈরী করে নিতে হবে।

২ টি মাঝারি আকারের আলুকে ভালো করে খোসা ছাড়িয়ে মেখে নিতে হবে। এর পরে একটি ফ্রাইং প্যানে সাদা জিরে গুঁড়ো ,লঙ্কা গুঁড়ো, হলুদ গুঁড়ো এবং ধনে গুঁড়ো ভালো করে নাড়াচাড়া করে নিয়ে মেখে নেওয়া আলুর সাথে ভালো করে মিশিয়ে নিতে হবে। এর পরে এর মধ্যে যোগ করতে হবে লঙ্কা কুচি ,ধনেপাতা কুচি এবং স্বাদমতো নুন। সমস্ত উপকরণকে ভালো করে মিশিয়ে নামিয়ে রাখতে হবে।

ফ্রাইং প্যানে অল্প তেল গরম করে নিতে হবে। তেল গরম হয়ে গেলে ব্যাটারটিকে গোল করে দিয়ে এর মধ্যে আলুর পুর দিতে হবে।

এর পরে উল্টে পাল্টে ভালো করে ভেজে নিলেই তৈরী হয়ে যাবে আলুর পুরি। সকাল কিংবা বিকেল যেকোনো সময়েই খাওয়া যেতে পারে অসাধারণ এই পদটি।

দেরি না করে আজকেই বানিয়ে ফেলুন চটজলদি এই মুখরোচক খাবারটি।

Categories
লাইফ স্টাইল

মসুর ডাল এবং মুড়ি দিয়ে বানিয়ে ফেলুন দুর্দান্ত স্বাদের এই ইউনিক মুখরোচক, শিখে নিন রেসিপি

বিকেলের জলখাবার বা স্ন্যাক্সের (Snacks) জন্য মুখরোচক খাবার খেতে সকলেই পছন্দ করেন। কিন্তু নিয়মিত বাইরের তেলেভাজাজাতীয় খাবার খেলে তা যে শরীরের ওপর ক্ষতিকারক প্রভাব ফেলবে এই বিষয়টি কারোরই অজানা নয়। আজ তাই আপনাদের সঙ্গে ভাগ করে নেবো মুড়ি ও মুসুর ডাল দিয়ে বানানো এক অভিনব স্ন্যাক্সের রেসিপি যা বানানো খুব সহজ। মুড়ি ও মুসুর ডালের মুখরোচক এই কাটলেট একবার খেলে এর স্বাদ মুখে লেগে থাকবে।

•উপকরণ:
১) মুড়ি
২) মুসুর ডাল
৩) পেঁয়াজ কুচি
৪) গাজর
৫) ধনেপাতা কুচি
৬) নুন
৭) চিলি ফ্লেক্স
৮) ভাজা মশলা গুঁড়ো
৯) গরম মশলা গুঁড়ো
১০) বেসন
১১) তেল

•প্রণালী:
প্রথমেই ১ বাটি মুড়ি মিক্সার গ্রাইন্ডারে দিয়ে মিহি গুঁড়ো করে নিতে হবে। মুড়ি গুঁড়ো হয়ে গেলে অন্য একটি পাত্রে ঢেলে রাখতে হবে। অপরদিকে, ১/২ কাপ মুসুর ডাল ধুয়ে ১৫-২০ মিনিট জলে ভিজিয়ে রাখতে হবে। নির্দিষ্ট সময় ভিজিয়ে রাখার পর মুসুর ডাল মিক্সার গ্রাইন্ডারে দিয়ে জল ছাড়াই পেস্ট বানিয়ে নিতে হবে। এবারে আগে থেকে প্রস্তুত করে রাখা মুড়ির গুঁড়োর মধ্যে মুসুর ডালের এই পেস্ট দিয়ে দিতে হবে। মুড়ির গুঁড়ো ও মুসুর ডালের পেস্ট খুব ভালো করে চামচ দিয়ে মিশিয়ে নিতে হবে।

এরপরে ওই মিশ্রণের মধ্যে একটি মাঝারি সাইজের পেঁয়াজ কুচি, কিছু পরিমাণ গ্রেট করে নেওয়া গাজর, কিছু পরিমাণ ধনেপাতা কুচি, স্বাদ অনুযায়ী নুন, ১ চামচ চিলি ফ্লেক্স, ১/৪ চামচ ভাজা মশলা গুঁড়ো (গোটা জিরে ও গোটা ধনে শুকনো খোলায় নেড়ে গুঁড়ো করে এই মশলা বানাতে হবে), ১/৪ চামচ গরম মশলা গুঁড়ো ও ২ চামচ বেসন দিয়ে সবকিছু খুব ভালো করে মিশিয়ে নিতে হবে।

এবারে হাতে সামান্য তেল লাগিয়ে এই মিশ্রণ থেকে কিছু পরিমাণ করে নিয়ে হাতে করে চেপে চেপে প্রথমে গোল বল ও তারপর লম্বা বা চৌকো কাটলেটের আকৃতি দিতে হবে। এইভাবে পুরো মিশ্রণ থেকে যতগুলি সম্ভব কাটলেট বানিয়ে নিতে হবে। এরপর গ্যাসে ফ্রাইং প্যান বসিয়ে পরিমাণ অনুযায়ী তেল দিয়ে গরম করে নিতে হবে। তেল গরম হয়ে গেলে তার মধ্যে একসাথে চার-পাঁচটি কাটলেট দিয়ে দিতে হবে। বেশ খানিকক্ষণ সময় নিয়ে প্রত্যেকটি কাটলেট উল্টেপাল্টে খুব ভালো করে ভেজে নিতে হবে।

বাদামি রঙ না আসা পর্যন্ত প্রত্যেকটি কাটলেট ভাজতে হবে। ভাজা হয়ে গেলে নামিয়ে নিয়ে পছন্দমতো সস বা কাসুন্দির সঙ্গে পরিবেশন করুন মুড়ি ও মুসুর ডালের এই অভিনব কাটলেট।

Categories
লাইফ স্টাইল

আলু ও ময়দা দিয়ে মাত্র ১০ মিনিটেই বানিয়ে ফেলুন দুর্দান্ত স্বাদের মুখোরোচক, শিখে নিন রেসিপি

মুখরোচক স্ন্যাকস (Snacks) বা টিফিন (Tiffin) খেতে কে না পছন্দ করে! কিন্তু হাজার কাজের ফাঁকে সময় নিয়ে খাবার বানানো সম্ভব হয় না। আজকের এই প্রতিবেদনে তাই এমন এক রেসিপি বর্ণনা করা হবে যা খুব কম সময়েই তৈরি করে নেওয়া যাবে। এই অভিনব ‘আলুর পুরভরা পরোটা’ একবার খেলে এর স্বাদ মুখে লেগে থাকবে।

•উপকরণ:
১)ময়দা
২)নুন
৩)চিনি
৪)তেল
৫)জল
৬)চিলি ফ্লেক্স
৭)ধনেপাতা কুচি
৮)গোটা জিরে
৯)ধনে গুঁড়ো
১০)জিরে গুঁড়ো
১১)আদাবাটা
১২)হলুদ গুঁড়ো
১৩)শুকনো লঙ্কা গুঁড়ো
১৪)গরম মশলা গুঁড়ো
১৫)আলু সেদ্ধ

•প্রনালী:
একটি মিক্সিং বোলে ১ কাপ ময়দা, ১/৪ চামচ নুন, ১ চামচ চিনি ও ২ চামচ তেল দিয়ে সবকিছু খুব ভালো করে হাত দিয়ে মিশিয়ে নিতে হবে। এবারে ময়দার মধ্যে অল্প অল্প করে জল দিয়ে ডো প্রস্তুত করে নিতে হবে। ময়দা মেখে ডো বানান হয়ে গেলে তার মধ্যে ১/২ চামচ চিলি ফ্লেক্স ও কিছু প‌রিমাণ ধনেপাতা কুচি দিয়ে আবার মেশাতে হবে।

অন্যদিকে, গ্যাসে কড়াই বসিয়ে ১-২ চামচ তেল দিয়ে গরম করে নিতে হবে। তেল গরম হয়ে গেলে তার মধ্যে ১ চামচ গোটা জিরে, ১/৪ চামচ ধনে গুঁড়ো, ১/৪ চামচ জিরে গুঁড়ো, ১/৪ চামচ আদাবাটা, ১/৪ চামচ হলুদ গুঁড়ো, ১/৪ শুকনো লঙ্কা গুঁড়ো দিয়ে সবকিছু খুব ভালো করে মিশিয়ে মশলা কষিয়ে নিতে হবে। মশলা কষানোর সময়েই কড়াইয়ে স্বাদ অনুযায়ী নুন, ১/৪ চামচ গরম মশলা গুঁড়ো, কিছু পরিমাণ ধনেপাতা কুচি দিয়ে আবারও মিশিয়ে নিতে হবে। এবারে কড়াইয়ে আগে থেকে সেদ্ধ করে রাখা একটি আলু খোসা ছাড়িয়ে ভেঙে দিয়ে মশলার সাথে খুব ভালো করে মেশাতে হবে। আলুর পুর তৈরি হয়ে গেলে অন্য পাত্রে তুলে রাখতে হবে।

এবারে আগে থেকে প্রস্তুত করে রাখা ডো থেকে কিছু পরিমাণ করে লেচি কেটে নিতে হবে। শুকনো ময়দা ছড়িয়ে তার ওপর একটি লেচি রেখে বেলে নিতে হবে। গোল করে বেলে নেওয়ার পর ছুরি দিয়ে লেচি চৌকো আকারে কেটে নিতে হবে। এবারে ওই চৌকো আকারের মধ্যে কিছু পরিমাণ করে আলুর পুর দিয়ে চারপাশ মুড়িয়ে দিতে হবে। এইভাবে প্রত্যেকটি লেচির মধ্যে পুর ভরে দিতে হবে।

এবারে গ্যাসে ফ্রাইং প্যান বসিয়ে পরিমাণ অনুযায়ী তেল দিয়ে গরম করে নিতে হবে। তেল গরম হয়ে গেলে তার মধ্যে একটি করে আলুর পুরভরা পরোটা দিতে হবে। ফ্রাইং প্যানে একসাথে চার-পাঁচটি করে পুরভরা পরোটা দিয়ে বেশ কিছুক্ষণ সময় নিয়ে ভালো করে উল্টেপাল্টে লালচে করে ভেজে নিতে হবে।

ভাজা হয়ে গেলে তেল ঝরিয়ে তুলে নিয়ে গরম গরম পরিবেশন করুন অভিনব ‘আলুর পুরভরা পরোটা’।

Categories
লাইফ স্টাইল

ডিম ও আটা দিয়ে বানিয়ে ফেলুন দুর্দান্ত স্বাদের এই বিকালের নাস্তা, শিখে নিন রেসিপি

সকালবেলার জলখাবার (Breakfast) হোক কি সন্ধ্যেবেলার নাস্তা ডিমের কোন পদ থাকলে একেবারে পুরো জমে যায়। তাছাড়া প্রতিদিনই সকাল বা সন্ধ্যায় কি টিফিন বানানো যায় তাই নিয়ে বাড়ির মহিলারা খুবই চিন্তার মধ্যে থাকেন। আবার প্রতিদিন একঘেয়েমি টিফিন খেতেও কারোরই ভালো লাগেনা। তাই আজকের এই প্রতিবেদনে একেবারে ঘরোয়া পদ্ধতিতে ‘ডিম পরোটার’ রেসিপি শেয়ার করা হলো। যা ছোট থেকে বড় সকলেই অনায়াসে খেতে পারবে এবং একটি বানাতেও খুব কম সময় লাগবে। আবার এই পদটি কোন তরকারির সাথে বা টমেটো সস দিয়েও খাওয়া যেতে পারে।

উপকরণ :
১) আটা
২) ডিম
৩) নুন
৪) পেঁয়াজ কুচি
৫) টমেটো কুচি
৬) কাঁচালঙ্কা
৭) গোলমরিচ গুঁড়ো
৮) তেল
৯) জল

প্রণালী:
প্রথমে একটি পাত্রে আটা বা ময়দা নিয়ে তার মধ্যে দুটো বা তিনটে ডিম ফেটিয়ে ভালো করে মিশিয়ে নিন। এরপর একে একে পরিমাণ মতো নুন, পেঁয়াজ কুচি, টমেটো কুচি, কাঁচা লঙ্কা ও পরিমান মত জল নিয়ে ভালো করে মিশিয়ে নিন।

তারপর খুব বেশি ঘনও নয় আবার খুব একটা পাতলাও নয় এরকম ধরনের একটা ব্যাটার তৈরি করুন।

এরপর এতে একটু গোলমরিচের গুঁড়ো মিশিয়ে নিন। তারপর ফ্রাইংপ্যানে তেল ব্রাশ করে এক হাতা মতো ব্যাটার ছড়িয়ে দিয়ে উল্টে পাল্টে ভালো করে ভেজে নিন।

এরপর এপিঠ ওপিঠ ভালো করে উল্টে ভেজে নিলেই তৈরি হয়ে যাবে ‘ডিম পরোটা’র মুখরোচক রেসিপিটি।

Categories
লাইফ স্টাইল

ডিম ও আটা দিয়ে বানিয়ে ফেলুন দুর্দান্ত স্বাদের সকালের জলখাবার, শিখে নিন রেসিপি

ডিম ও গোলারুটির একটা অসাধারণ জলখাবারের কথা আজ বলব। এই পদটি সকালের ব্রেকফাস্ট বা বিকেলের জলখাবারে খুবই ভাল লাগে। আসুন জেনে নিই রেসিপি।

উপকরণঃ
১. আটা ১ কাপ
২. ডিম ৩ টা
৩. জাল দেওয়া দুধ ১ কাপ
৪. নুন স্বাদমতো
৫. টমেটো কুচি মাঝারি সাইজের ১ টা
৬. কাঁচালঙ্কাকুঁচি ১ টা
৭. পেঁয়াজকুচি ১ টা
৮. ধনেপাতা কুচি ১ চামচ
৯. সাদা তেল ৪-৫ চামচ
১০. গ্রেটেড চিজ পরিমাণমত

প্রণালীঃ

আগে থেকে জাল দেওয়া ১ কাপ দুধ, ১ কাপ আটা, ১ টা ডিম, পরিমাণ মত নুন মিশিয়ে গোলা তৈরী করে নিন। এইবার আরেকটা পাত্রে ২ টি ডিম, কাঁচালঙ্কাকুঁচি, টমেটোকুঁচি, নুন, ধনেপাতা কুচি দিয়ে মিশিয়ে নিন।

এবার ফ্রাইং প্যান গরম করুন। ২ চামচ গোলা ঢেলে দিন। রুটির ওপরে এইবার ডিম গোলাটা কিছুটা দিন। ঢাকা দিয়ে রেখে দিন। একটু বাদে ঢাকা খুলে রুটি উলটে দিন।

ওপরে চিজ ছড়িয়ে দিন। পাশে থেকে একটু তেল ছড়িয়ে দিন। ঢেকে রান্না হতে দিন। এবার নামিয়ে হাত দিয়ে রুটি রোল করে নিন। এবার টুকরো করে কেটে পরিবেশন করুন।

Categories
লাইফ স্টাইল

চিড়ে দিয়ে বানিয়ে ফেলুন দুর্দান্ত স্বাদের মুখরোচক নাস্তা, একবার খেলে বারবার খেতে ইচ্ছে করবে

বিকেলবেলা মুখরোচক স্ন্যাক্সজাতীয় (Snacks) কিছু খাবার খাওয়ার জন্য সকলেরই মন উশখুশ করে ওঠে। কিন্তু সবসময় বাইরের তৈরি জিনিস খেলে স্বাস্থ্যের জন্য তা মোটেও ভাল প্রভাব ফেলেনা। এছাড়াও বাড়িতে অতিথি আসলে সবসময় বাইরে থেকে খাবার এনে দেওয়া সম্ভব হয়ে ওঠেনা। এইসব মুশকিল আসানের জন্য আজ এমন এক চটজলদি স্ন্যাক্সের রেসিপি আপনাদের সঙ্গে ভাগ করে নেবো যা স্বাদে হবে অভিনব এবং খুব সহজেই বানিয়ে নেওয়া যাবে। চিঁড়ে ও আলু দিয়ে তৈরি এই দারুণ স্বাদের মুচমুচে খাবার একবার খেলে মুখে লেগে থাকবে।

•উপকরণ:
১)চিঁড়ে
২)জল
৩)আলু
৪)পেঁয়াজ কুচি
৫)ধনেপাতা কুচি
৬)কারিপাতা কুচি
৭)কাঁচালঙ্কা কুচি
৮)নুন
৯)গোটা জিরে
১০)ভাজা মশলা গুঁড়ো (গোটা জিরে ও গোটা ধনে একসাথে কাঠখোলায় ভেজে গুঁড়ো করে এই মশলা বানাতে হবে)
১১)কর্নফ্লাওয়ার
১২)তেল

•প্রনালী:

প্রথমেই একটি মিক্সিং বোলে ১ কাপ চিঁড়ে নিয়ে জল দিয়ে ভালো করে ধুয়ে ৫-১০ মিনিট ভিজিয়ে রাখতে হবে। এরপরে জল ঝরিয়ে চিঁড়ের মধ্যে একটি আলু সেদ্ধ করে খোসা ছাড়িয়ে খানিক ম্যাশ করে দিয়ে দিতে হবে। এরপরে মিক্সিং বোলে একটি মাঝারি সাইজের পেঁয়াজ কুচি, কিছু পরিমাণ ধনেপাতা কুচি, কিছু পরিমাণ কারিপাতা কুচি, ইচ্ছে অনুযায়ী কাঁচালঙ্কা কুচি, স্বাদ অনুযায়ী নুন, ১/৪ চামচ গোটা জিরে ও ১/২ চামচ ভাজা মশলা গুঁড়ো দিয়ে মিশিয়ে নিতে হবে। এবারে মিক্সিং বোলে ৪ চামচ কর্নফ্লাওয়ার দিয়ে আবারও সবকিছুর সঙ্গে মিশিয়ে নিতে হবে।

মিশ্রণ তৈরি হয়ে গেলে হাতে অল্প তেল লাগিয়ে কিছু পরিমাণ করে নিয়ে প্রথমে গোল বল করে নিতে হবে, তারপর হাতে চেপে চ্যাপ্টা করে মাঝখানে ছোট্ট গর্ত করে দিয়ে ডোনাটের আকৃতি দিতে হবে। এইভাবে পুরো মিশ্রণ থেকে যতগুলি সম্ভব ডোনাট বানিয়ে নিতে হবে। এবারে গ্যাসে কড়াই বসিয়ে পরিমাণ অনুযায়ী তেল দিয়ে গরম করে নিতে হবে। তেল গরম হয়ে গেলে চিঁড়ে ও আলুর ডোনাট কড়াইয়ে ছেড়ে দিতে হবে।

সোনালী-বাদামি রঙ না আসা পর্যন্ত প্রত্যেকটি ডোনাট উল্টেপাল্টে খুব ভালো করে ভেজে নিতে হবে। এরপর তেল ছেঁকে নামিয়ে নিয়ে পছন্দমতো সসের সঙ্গে পরিবেশন করে ফেলুন মুখরোচক ও অভিনব এই স্ন্যাক্স।

Categories
লাইফ স্টাইল

রেস্টুরেন্টের মতো বাড়িতেই বানিয়ে ফেলুন নরম তুলতুলে নান রুটি, একবার খেলে বারবার খেতে ইচ্ছে করবে

প্রতিটি বাঙালি বাড়িতেই রাতের বেলা কম বেশি রুটি খাওয়ার চল রয়েছে। কিন্তু প্রতিদিন একঘেয়েমি রুটি খেতে কারোরই ভালো লাগেনা। তাই আজকের এই প্রতিবেদনে রেস্টুরেন্টের মত স্বাদের খুব সামান্য ঘরে থাকা উপকরণেই নান রুটির রেসিপি শেয়ার করা হলো যা খেতেও যেমন সুস্বাদু ও তুলতুলে আবার এটি বানাতেও খুব একটা সময়ের প্রয়োজন পড়ে না। সকাল বা সন্ধ্যের টিফিন হিসেবেও ছোট থেকে বড় সকলে অনায়াসেই খেতে পারেন।

উপকরণ :
১) ময়দা
২) গুঁড়ো দুধ
৩) চিনি
৪) নুন
৫) ইনো
৬) সয়াবিন তেল
৭) জল

প্রণালী:
প্রথমে একটি পাত্রে ময়দা, গুঁড়ো দুধ,চিনি, নুন স্বাদমত, ইনো,সয়াবিন তেল ও উষ্ণ গরম জল অল্প অল্প করে মিশিয়ে একটি ময়দার ডো তৈরি করে নিতে হবে। এরপর ময়দার ডোটাকে নিয়ে কয়েকটি ছোট ছোট বলের আকারে বানিয়ে নিতে হবে। এবার এখান থেকে একটি ছোট অংশ নিয়ে পাতলা করে বেলে নিতে হবে। এরপর একটি কড়াই মাঝারি আঁচে গরম করে নিয়ে তাতে ওই বেলে রাখা ময়দার রুটিটা দিয়ে উপর থেকে তেল ব্রাশ করে দিতে হবে।

আপনারা চাইলে বাটার বা ঘিও দিতে পারেন। তারপর ওই নান রুটিটা এপিঠ ওপিঠ উল্টে পাল্টে মাঝারি আঁচে নরম করে ভালো করে ভেজে নিলেই তৈরি হয়ে যাবে তুলোর মতো তুলতুলে নান রুটি। আপনারা চাইলে প্রয়োজনে আর একটু তেল ব্রাশও করে দিতে পারেন। এরপর মাংসের সাথে গরম গরম পরিবেশন করুন এই নান রুটি।

Categories
লাইফ স্টাইল

এইভাবে সিমুই বানালে স্বাদ হবে দুর্দান্ত, হাত চাটবে আট থেকে আশি, শিখে নিন রেসিপি

হাতে যদি সময় কম থাকে এবং মুখরোচক কোন জলখাবার বানাতে চান তাহলে আজকের প্রতিবেদনে শেয়ার করা সিমুই এবং ডিম দিয়ে তৈরি এই রেসিপিটি আপনি একবার ট্রাই করতে পারেন। এটি একদিকে যেমন সুস্বাদু হয় অন্যদিকে অত্যন্ত স্বাস্থ্যকরও বটে। আপনি বাচ্চাদের টিফিনেও এই রেসিপিটি অনায়াসে দিতে পারেন। সকাল বা সন্ধ্যের জলখাবার হিসেবে এটি একটি আদর্শ পদ। আবার বাড়িতে কোন অতিথির আগমন হলেও খুব অল্প সময়ে এটি অনায়াসেই বানিয়ে নেওয়া যেতে পারে।

উপকরণ:-

১) সিমুই
২) আলু
৩) একটা গোটা পেঁয়াজকুঁচি
৪) ডিম
৫) কাঁচালঙ্কা
৬) জিরে
৭) হলুদ গুঁড়ো
৮) লঙ্কাগুঁড়ো
৯) নুন
১০) তেল
১১) জল

প্রণালী :
প্রথমে কড়াইতে তেল দিয়ে সিমুইগুলোকে মাঝারি আঁচে ভালো করে ভেজে নিয়ে জল দিয়ে এক মিনিট মত সেদ্ধ করে নিতে হবে। এরপর একটি কড়াইতে তেল ও জিরে দিয়ে লম্বা করে কেটে নেওয়া আলুর টুকরোগুলো,পেঁয়াজ কুঁচি, কাঁচালঙ্কা ও নুন দিয়ে ভালো করে ভেজে নিতে হবে। এখন কড়াই এর অন্য সাইডে ডিম ফেটিয়ে নিয়ে ভাজা ভাজা করে নিতে হবে।

এরপর এতে অল্প পরিমাণে হলুদ গুঁড়ো,লঙ্কাগুঁড়ো ও আগে থেকে সেদ্ধ করে রাখা সিমুই গুলোকে দিয়ে ভালো করে নেড়েচেড়ে নিতে হবে। আপনারা চাইলে প্রয়োজনে সবজিও এটাতে এড করতে পারেন। এরপর আরো কিছুক্ষন নাড়াচাড়া করে নিলেই তৈরি হয়ে যাবে এই অসাধারণ রেসিপি। এরপর পরিবারের সবার সাথে গরম গরম পরিবেশন করুন এই লোভনীয় রেসিপিটি।

Categories
লাইফ স্টাইল

গাজর ও ময়দা দিয়ে খুব সহজেই বানিয়ে ফেলুন দুর্দান্ত স্বাদের বিকালের নাস্তা,শিখে নিন রেসিপি

সকালের হাজার কাজের মাঝে জলখাবার (Breakfast) বানানো গৃহকর্ত্রীদের রীতিমতো অসুবিধের মধ্যে ফেলে দেয়। কিন্তু সকালবেলায় জলখাবার হিসেবে ভারী কিছু খাবার খাওয়া সকলের জন্যই প্রয়োজনীয়। আজ তাই আপনাদের সঙ্গে এমন এক ময়দা ও গাজর দিয়ে বানানো এক জলখাবারের অভিনব রেসিপি ভাগ করে নেবো যা খুব তাড়াতাড়ি বানিয়ে ফেলা যাবে এবং স্বাদেও দুর্দান্ত হবে।

•উপকরণ:
১)গাজর
২)চিনি
৩)ছোট এলাচ
৪)গুঁড়ো দুধ
৫)ময়দা
৬)নুন
৭)সাদা তেল

•পদ্ধতি:
প্রথমেই গ্যাসে কড়াই বসিয়ে খানিকক্ষণ গরম করে নিয়ে তাতে দুটো গাজর মিহিভাবে গ্রেট করে দিয়ে দিতে হবে, তার সাথেই দিতে হবে ১/৪ কাপ চিনি। গাজর ও চিনি একসাথে মিশিয়ে চিনি গলে না যাওয়া অবধি নেড়ে নিতে হবে। চিনি গলে যাওয়ার পরে কড়াইয়ে দুটো ছোট এলাচের মুখ ফাটিয়ে দিয়ে আরো ৩-৪ মিনিট নেড়ে নিতে হবে। এরপরে গাজরের মধ্যে ১/২ কাপ গুঁড়ো দুধ দিয়ে আবারও মিশিয়ে খানিক নেড়ে নিতে হবে। এই মিশ্রণ এবারে অন্য পাত্রে তুলে রেখে ঠান্ডা করে নিতে হবে।

এবারে একটি মিক্সিং বোলে ২০০ গ্রাম ময়দা, সামান্য নুন ও সাদা তেল দিয়ে একসাথে মিশিয়ে নিতে হবে। এরপর ময়দার মধ্যে অল্প অল্প করে জল দিয়ে ময়দা মেখে ডো বানিয়ে নিতে হবে। ডো থেকে আলাদা আলাদা লেচি করে নিতে হবে। এবারে একটি লেচির ওপর অল্প শুকনো ময়দা ছড়িয়ে খানিক বড়ো করে বেলে নিতে হবে। বেলে নেওয়া রুটির মধ্যে কিছু পরিমাণ করে গাজরের পুর দিয়ে ভালো করে চারপাশ মুড়িয়ে দিতে হবে। এইভাবে প্রত্যেকটি লেচি বেলে নিয়ে তার মধ্যে গাজরের পুর ভরে নিতে হবে।

এবারে গ্যাসে কড়াই বসিয়ে পরিমাণ অনুযায়ী তেল দিয়ে গরম করে নিতে হবে। তেল গরম হয়ে গেলে তিন-চারটি করে পুরভরা লেচি কড়াইয়ে ছেড়ে দিতে হবে। প্রত্যেকটি লেচি উল্টেপাল্টে খুব ভালো করে সোনালী-বাদামি রঙ না আসা পর্যন্ত ভাজতে হবে। ব্যস, তাহলেই প্রস্তুত যাবে দারুণ মুখরোচক গাজরের পুরভরা জলখাবার।