April 12, 2024

সোমবার নবান্নে রাজ্যে সাত নতুন জেলার ঘোষণা করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এই সাত নতুন জেলা হল, সুন্দরবন, ইছামতী (উত্তর ২৪ পরগনার বনগাঁ মহকুমা ও বাগদা নিয়ে), বসিরহাট, রানাঘাট, বিষ্ণুপুর, বহরমপুর, এবং কান্দি। আইন শৃঙ্খলা বজায় রাখার ক্ষেত্রে বাড়তি সুবিধা এবং উন্নতমানের পরিষেবা দিতেই এই সাত নতুন জেলা তৈরি করা হবে বলে জানালেন মুখ্যমন্ত্রী।

মুর্শিদাবাদ জেলা ভেঙে বহরমপুর একটি পৃথক জেলা তৈরি করা হল। বর্তমানে মুর্শিদাবাদ জেলার সদর শহর হল বহরমপুর। কিন্তু, প্রত্যন্ত এলাকার মানুষদের বহরমপুরে যেতে অনেক সমস্যা হয়। সময় বেশি লাগে এবং খরচও বেশি। মুর্শিদাবাদ বিভক্ত হওয়ায় সাধারণ মানুষের সুবিধা হবে। জেলা ভিত্তিতে সরকারের অর্থ বরাদ্দ বন্টন হয়। সেক্ষেত্রে একটি জেলা ভেঙে দু’টি হলে কেন্দ্রের বরাদ্দ আলাদা আলাদাভাবে আসবে। ফলে সাধারণ মানুষের জন্য বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কাজ আরও বেশি করা যাবে বলেই মত প্রশাসনের। তবে জেলার সংখ্যা বাড়লে সরকারি আধিকারিক ও পুলিশকর্মী যেমন অতিরিক্ত লাগবে। সরকারের খরচও অনেকটাই বাড়বে।

রাজ্যে ক্রমাগত ঘটে চলা খুন, ধর্ষণের ঘটনায় আইন-শৃঙ্খলার অবনতি ঘটেছে বলে অভিযোগ তুলেছেন বিরোধীরা। জেলা বিভক্ত হলে প্রতিটি জায়গায় আরও পুলিশি নজরদারি বাড়ানো সম্ভব হবে। তার ফলে আইনশৃঙ্খলা বজায় রাখতেও সুবিধা হবে।

সোমবার নবান্ন থেকে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় মন্ত্রিসভায় রদবদলের ঘোষণাও করেন। তিনি এদিন বলেন, “সুব্রতদার প্রয়াণের পর তাঁর জায়গা খালি রয়েছে। সাধন পাণ্ডের জায়গাটিও খালি। এই মুহূর্তে পার্থ চট্টোপাধ্যায় জেলে রয়েছেন। ফলে একাধিক জায়গা খালি রয়েছে। আমার পক্ষে তো এতগুলো দফতর সামলানো সম্ভব নয়। তাই কিছু রদবদলের প্রয়োজন। অনেকে মাতব্বর হয়ে গিয়েছেন। অনেক কিছু বলছেন। কামরাজ মডেলে মন্ত্রিসভা ভেঙে নতুন করে গঠন হবে বলছে। এরকম কোনও পরিকল্পনা আমাদের নেই।” আগামী বুধবার বিকেল ৪টে নাগাদ এই রদবদলের ঘোষণা হবে বলে জানান মুখ্যমন্ত্রী। মন্ত্রিসভায় থাকা চার পাঁচজনকে দলের কাছে লাগানো হবে বলেও জানান মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।