Categories
লাইফ স্টাইল

ঠাকুমার স্টাইলে এইভাবে চিকেন রান্না করলে স্বাদ হবে দুর্দান্ত, হাত চাটবে আট থেকে আশি, রইল রেসিপি

চিকেন খেতে আমরা কমবেশী সবাই ভালবাসি। রেডমিটের থেকে চিকেন অনেক স্বাস্থ্যকর তাই চিকেন অনেকে প্রায় রোজই খেয়ে থাকেন। এজন্য মুরগীর মাংস রান্নার সময় নিত্যনতুন রেসিপির ট্রাই করতে সবাই পছন্দ করেন। চলুন আজ চিকেনের একটা নতুন রেসিপি দেখে নেওয়া যাক।

উপকরণ:

১. মুরগির মাংস ২ কেজি
২.নুন স্বাদমতো
৩.হলুদ ২ চামচ
৪.আদা বাটা ৩ চামচ
৫.রসুন বাটা ৩ চামচ
৬.কাঁচালঙ্কা বাটা ১ চামচ
৭.শুকনোলঙ্কা বাটা ১ চামচ
৮. বড় ৪-৫ টি পেঁয়াজ কুচি
৯.১ টি টমেটো কুচি
১০.তেজপাতা ২ টি
১১.সাদা জিরে ২ চামচ
১২.এলাচ ২টি
১৩.লবঙ্গ ২টি
১৪.দারুচিনি ছোট ১ টুকরো
১৫. আস্ত শুকনোলঙ্কা ১ টি
১৬.জায়ফল পরিমাণ মত
১৭.জয়িত্রী পরিমাণ মত
১৮.ধনে গুঁড়ো ২ চামচ
১৯.ঘি ১ চামচ
২০.সরষের তেল ৫ চামচ

প্রণালী:

রান্নার আগে মুরগীর মাংসকে ম্যারিনেট করে রাখতে হবে। প্রথমে ২ কেজি মুরগির মাংসকে ভালো করে ধুয়ে পরিষ্কার করে নিতে হবে। এরপর স্বাদমতো নুন, ২ টেবিল চামচ হলুদ গুঁড়ো, ৩ টেবিল চামচ আদা বাটা, ২ টেবিল চামচ রসুন বাটা, ৩ টেবিল চামচ জিরে ও ধনে বাটা, ২ টেবিল চামচ কাঁচালঙ্কা ও শুকনোলঙ্কা বাটা দিয়ে মাংসকে ভালো করে মেখে নিতে হবে। এরপর আধঘন্টার জন্য মাংস ঢাকা দিয়ে রাখতে হবে।

আধঘন্টা পরে কড়াইতে ৪-৫ চামচ সরষের তেল গরম করে নিতে হবে। এরপর কিছুটা পেঁয়াজ কুচি দিয়ে লাল করে ভেজে (বেরিস্তা) তুলে রাখতে হবে। তারপর ফোড়ন হিসেবে ২টো তেজপাতা, খানিকটা সাদা জিরে দিয়ে নাড়াচাড়া করে তারপর আরও কিছুটা পেঁয়াজ দিয়ে ভেজে নিতে হবে। পেঁয়াজ ভাজা হলে টমেটো কুচি দিয়ে কিছুক্ষন কষিয়ে নিয়ে তেল ছেড়ে এলে ম্যারিনেট করে রাখা মাংসটা কড়ায় দিয়ে দিতে হবে।

তারপর সময় নিয়ে ভালভাবে মাংসটাকে কষাতে হবে ১০ মিনিট। আস্তে আস্তে মাংসের গন্ধ বেরুবে। মাংসের থেকে তেল ছাড়বে। এরপর কড়ায় পরিমাণ মতো গরম জল দিয়ে মাংসকে ফুটতে দিতে হবে হবে। অন্যদিকে শুকনোলঙ্কা, এলাচ, দারুচিনি, লবঙ্গ, জয়িত্রী, জাইফল, ধনে একসঙ্গে বেটে নিতে হবে। এরপর মাংস কিছুক্ষন ফোটানোর পর গ্যাস অফ করে রেখে দিতে হবে।

এইবার গ্যাসে অন্য একটি কড়াই বসিয়ে তাতে ১ চামচ ঘি দিয়ে বাটা মসলা দিয়ে কিছুক্ষণ নাড়াচাড়া করে নিতে হবে। এরপর সেটিকে মাংসের মধ্যে দিয়ে ঢেলে দিয়ে আবারও মাংসটা কিছুক্ষন ফুটিয়ে নিয়ে উপর থেকে ভেজে রাখা বেরেস্তা ছড়িয়ে নামিয়ে নিলেই একেবারে তৈরি সবচেয়ে অনবদ্য স্বাদের এই ‘মুরগির মাংস’ এর পদটি। এরপর গরম ভাতের সঙ্গে এই পদটি পরিবেশন করুন।