Categories
লাইফ স্টাইল

এইভাবে কাঁচকলা রান্না করলে হাত চাটবে আট থেকে আশি, শিখে নিন সিক্রেট রেসিপি

অনেকেই আছেন যারা কাঁচকলা খেতে ভালবাসেন না। অথচ কাঁচকলা স্বাস্থ্যের জন্য উপকারী। পেটের পক্ষে খুব ভাল। কাঁচকলাকে সুস্বাদুভাবে রান্না করা যায়। কাঁচকলার এই নিরামিষ পদটি একবার খেলে বারবার খেতে ইচ্ছা করবে। চলুন তবে দেখে নেওয়া যাক কাঁচকলার এই রেসিপিটি।

উপকরণ:
১.কাঁচাকলা ২ টি
২.নুন স্বাদমতো
৩.চিনি স্বাদমতো
৪.হলুদ গুঁড়ো ১/২ চামচ
৫.সাদা জিরে ১/২ চামচ
৬.শুকনোলঙ্কা ২ টি
৭.আদা বাটা ১/২ চামচ
৮.ধনে গুঁড়ো ১/২ চামচ
৯.জিরে গুঁড়ো ১/২ চামচ
১০.লঙ্কা গুঁড়ো ১/২ চামচ
১১.টক দই ২ চামচ
১২.কাঁচালঙ্কা ৪ টি
১৩.গরমমসলা গুঁড়ো ১/২ চামচ
১৪.সাদা তেল ৩ চামচ

প্রণালী:
প্রথমেই কাঁচাকলা দুটিকে খোসা ছাড়িয়ে গোলগোল করে কেটে নিতে হবে।

তারপর ১/২ চামচ নুন ও সামান্য হলুদ গুঁড়ো দিয়ে মিশিয়ে নিতে হবে। তারপর কড়াইতে ৩ চামচ সাদা তেল গরম করে তাতে কাঁচাকলাগুলোকে দিয়ে ভালোভাবে ভেজে নিতে হবে। ভাজা কাঁচকলার টুকরোগুলো আলাদা করে তুলে রেখে দিন।

এবার বাকি তেলে সামান্য জিরে ও শুকনোলঙ্কা ফোড়ন দিয়ে ১/২ চামচ আদা বাটা, ১/২ চামচ ধনে গুঁড়ো, ১/২ চামচ জিরে গুঁড়ো, সামান্য লঙ্কার গুঁড়ো আর সামান্য জল দিয়ে কষাতে হবে। মসলা কষিয়ে তেল ছাড়লে ২ চামচ টক দই দিয়ে ভালো করে মসলার সাথে কষিয়ে নিতে হবে। তারপর ৪ টে কাঁচালঙ্কা দিয়ে আরো মিনিট খানেক রান্না করে স্বাদমতো নুন ও চিনি দিয়ে ভালো করে মসলা কষান।

তেল ছাড়লে এইবারে ভেজে রাখা কাঁচাকলা মসলার মধ্যে দিয়ে দিন। আবার ভালো করে কাঁচকলা টুকরোগুলোকে মসলার সাথে মাখিয়ে নিন। তারপর পরিমান মত ঈষদুষ্ণ জল দিয়ে মিনিট দুয়েক রান্না করে নিতে হবে।

তারপর গরম মসলার গুঁড়ো দিয়ে মিশিয়ে নিয়ে আরও ১ মিনিট রান্না করে নিলেই একেবারে তৈরি কাঁচাকলার এই অনন্য রেসিপি। গরম গরম ভাত বা রুটির সাথে এই পদটি খেতে খুব ভাল লাগবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.