May 25, 2024

সবজির মধ্যে লাউ একটি অত্যন্ত পুষ্টিকর সবজি। এই সবজির চাহিদা দেশের বাইরে বিদেশেও রয়েছে। শীতকালে মূলত লাউ হয়। বাড়ির টবে খুব সহজেই চাষ করা যাবে এই সবজিটি।

বর্তমানের অনিয়মিত জীবনযাপনের কারণে এবং রোগের জন্য স্থুলতা এবং ওজন বৃদ্ধি একটি খুব সাধারণ সমস্যা হয়ে দাঁড়িয়েছে। তবে এই ওজন বৃদ্ধি স্বাস্থ্যের পক্ষে খুব একটা ভালো নয়। লাউয়ের রস এই সমস্যা থেকে মুক্তি দিতে পারে। লাউয়ের মধ্যে উপস্থিত প্রাকৃতিক জলের কারণে ত্বক ফর্সা হয়। লাউয়ে রয়েছে প্রোটিন ভিটামিন, লবন, ভিটামিন , ক্যালসিয়াম ,ম্যাগনেসিয়ামের মতো উপাদান যা শরীরে রোগ প্রতিরোধ করতে সাহায্য করে। এটি শরীরের উচ্চ কোলেস্টোরলের মাত্রা কমিয়ে দিয়ে হৃদরোগের ঝুঁকি কমায়।

১. লাউ চাষ করার জন্য প্রয়োজন একটু বড়ো আকারের ড্রাম কিংবা টব।

২. লাউ চাষের জন্য মাটি হিসেবে ব্যবহার করতে হবে এঁটেল কিংবা দোআঁশ মাটি।

৩.মাটির সাথে গোবর সার ভালো করে মিশিয়ে উপযুক্ত মাটি তৈরী করে নিতে হবে।

৪. জৈব স্যারের জন্য ৫ দিন অন্তর সর্ষের খোল পচা সার ব্যবহার করা যেতে পারে।

৫. এইভাবে মাটি সঠিভাবে প্রস্তুত করার ১০ থেকে ১৫ দিন পরে কোন নার্সারি কিংবা দোকান থেকে লাউয়ের বীজ কিনে আগের দিন ভিজিয়ে রাখতে হবে। পরের দিন মাটিতে ভালো করে গর্ত করে পুঁতে দিতে হবে। খেয়াল রাখতে হবে যাতে মাটির জল নিকাশি ব্যবস্থা ভালো হয়।
৬. লাউ গাছ বৃদ্ধির জন্য প্রচুর জলের প্রয়োজন। সেই জন্য সকাল এবং বিকেলে সূর্য ডুবে যাওয়ার পরে তবে চারিদিকে জল দিতে হবে। গাছ একটু বড়ো হয়ে গেলে মাচার ব্যবস্থা করতে হবে।

৭.মাচা তৈরী করে নেওয়ার পরে পাখির জন্য খাদ্যের ব্যবস্থা করলে ভালো হবে। পাখিরা যদি গাছের পোকামাকড় খেয়ে নেই তাহলে গাছের ক্ষতি হবে না।

৮.লাউ গাছকে পিঁপড়ের হাত থেকে বাঁচানোর জন্য গাছের গোড়ায় ছাই দিয়ে দিতে হবে। এতে পিঁপড়ের আক্রমণ থেকে রেহাই পাওয়া যাবে।