May 18, 2024

জনসাধারণের মনে ব্যবসার (Business) প্রতি আগ্রহ বর্তমান সময়ে যে উত্তরোত্তর বৃদ্ধি পেয়ে চলেছে তা কারোরই অজানা নয়। বর্তমান সময়ে কর্মসংস্থান অর্থাৎ চাকরির যা অবস্থা তা মানুষকে আরো বেশি করে ব্যবসার মাধ্যমে স্বনির্ভর হয়ে ওঠার প্রতি আগ্রহী করে তুলেছে। জয়ন্তী প্রধান (Jayanti Pradhan) এমনই একজন মানুষ যিনি চাকরি করতে চেয়েও পরবর্তী সময়ে স্বনির্ভর হওয়ার দিকে ঝুঁকেছিলেন এবং আজ নিজেকে সফলভাবে প্রতিষ্ঠা করেছেন।

ভারতবর্ষের উড়িষ্যা রাজ্যের বার্গারহ জেলার জয়ন্তী এমবি‌এ (MBA) সম্পন্ন করার পরেও চাকরি না পেয়ে মাশরুম (Mushroom) চাষ আরম্ভ করেন। বিভিন্ন সমস্যার সম্মুখীন হয়েও কৃষি বিজ্ঞান দপ্তর থেকে মাশরুম চাষবিষয়ক প্রশিক্ষণ গ্রহণ করে ২০০৩ সালে তিনি চাষ শুরু করেন। কৃষক পরিবারের এই যুবতী এলাকার ধানের জমি থেকে প্রাপ্ত খড় কাজে লাগিয়ে নিজের মাশরুম চাষ করতে থাকেন। বস্তুত, খড় মাশরুম চাষের জন্য অত্যন্ত প্রয়োজনীয়। এছাড়াও, ৩০° তাপমাত্রা বদ্ধ ঘরে চাষ করলে মাশরুমের ফলন ভালো হয় বলে তিনি জানিয়েছেন।

সফলভাবে মাশরুম চাষ শুরু করলেও তা বিক্রি করার জন্য জয়ন্তীকে প্রথম দিকে বেশ বেগ পেতে হয়েছিল। তাই তিনি প্রথম কয়েক মাস গ্রামবাসীদের বিনামূল্যে নিজের উৎপাদিত মাশরুম বিতরণ করেছিলেন, এরপর আস্তে আস্তে সকলে মাশরুম সম্পর্কে আগ্রহী হয়ে ওঠেন। সময়ের সাথে সাথে জয়ন্তীর মাশরুম চাষের ব্যবসা দিকে দিকে ছড়িয়ে পড়তে থাকে এবং বিভিন্ন জায়গা থেকে লোকে অর্ডার দিয়ে এসে মাশরুম কিনতে থাকে। ২০০৪ সালে জয়ন্তীর বিয়ে হওয়ার পরে তাঁর স্বামী এই মাশরুম চাষ ও ব্যবসার ক্ষেত্রে তাঁর পাশে দাঁড়িয়েছেন। বিগত কয়েক বছর ধরে সফলভাবে মাশরুম উৎপাদন ও ব্যবসা করার পরে আজ জয়ন্তী প্রধানের বার্ষিক আয় ২০ লক্ষ টাকা। পরিসংখ্যান অনুযায়ী বর্তমানে তিনি বছরে প্রায় ২০০ কুইন্টাল মাশরুম উৎপাদন করে থাকেন।