May 18, 2024

কালের অতলে হারিয়ে গিয়েছেন বলিউড অভিনেতা হৃতিক রোশনের (Hrithik Roshan) সুন্দরী নায়িকা শাবানা রাজা । অভিষেকে সাড়া জাগিয়েও বিনোদন জগতে আর দেখতে পাওয়া যায়নি মনোজ বাজপেয়ির (Manoj Bajpayee) স্ত্রী শাবানাকে ।

২০০০ সালে মুক্তি পেয়েছিল হৃতিক রোশন (Hrithik Roshan) এবং শাবানা রাজা (Shabana Raza) অভিনীত ‘ফিজা’ (Fiza) সিনেমাটি। সিনেমাটি তেমনভাবে বাণিজ্যিক সফলতা না পেলেও মিষ্টি সুন্দরী এই অভিনেত্রীকে দর্শকদের ভালো লেগেছিল। বলিউডে প্রধানত ‘নেহা’ নামেই বেশি পরিচিত তিনি। ১৯৯৮ সালে অভিনেতা ববি দেওলের (Bobby Deol) বিপরীতে ‘করিব’ (Kareeb) সিনেমার মধ্যে দিয়ে বলিউডে অভিষেক ঘটেছিল শাবানার। এর পরে ‘হোগি প্যায়ার কি জিত’ (Hogi Pyaar Ki Jeet) , ‘এহসাস:দ্য ফিলিং’ (Ehsaas: The Feeling) প্রভৃতি সিনেমায় অভিনয় করেছিলেন। তাঁকে সর্বশেষ ২০০৯ সালে ‘অ্যাসিড ফ্যাক্টরি’ (Acid Factory) সিনেমায় অভিনয় করতে দেখা গিয়েছিল। বলিউডের পাশাপাশি তামিল এবং কানাড়া ছবিতেও তাঁকে অভিনয় করতে দেখা গিয়েছিল। ২০০১ সালে মুক্তি পেয়েছিল তাঁর প্রথম তামিল ছবি ‘আলী থান্দা ভানাম’ (Alli Thandha Vaanam) এবং ২০০৩ সালে কানাড়া ছবি ‘স্মাইল’ (Smile)।

বলিউডে পা রাখার পরেই তাঁর রূপে মুগ্ধ হয়েছিল গোটা বলিউড। মেয়েদের হার্টথ্রব হৃতিকের সঙ্গে সঙ্গে অনেক পুরুষ হৃদয় জয় করে নিয়েছিলেন শাবানা ‘ফিজা’ সিনেমার মধ্যে দিয়ে। কারিশমা কাপুরের (Karisma Kapoor) মতো সফল অভিনেত্রী থাকা সত্ত্বেও আলাদা করে নজর কেড়েছিলেন প্রতিভাবান এই অভিনেত্রী। কিন্তু কেরিয়ারের মধ্যগগনে এসে হঠাৎ করেই হারিয়ে গিয়েছিলেন শাবানা। ‘করিব’ ছবিতে অভিনয় করার সময় তাঁর পরিচয় হয়েছিল অভিনেতা মনোজ বাজপেয়ির (Manoj Bajpayee) সাথে। দীর্ঘ ৮ বছর সম্পর্কে থাকার পরে ২০০৬ সালে বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হয়েছিলেন তাঁরা দুজনে। বিয়ের পরে হাতে গোনা গোটা দুয়েক ছবিতে অভিনয় করেছিলেন তিনি। কন্যা আওয়া নায়লাকে (Awa Nayla) বর্তমানে বেশ সুখেই রয়েছেন শাবানা।

বলিউডের অনেক নায়িকাই রয়েছেন যারা অভিষেকেই সবার নজর কাড়তে সক্ষম হয়েছিলেন নিজের রূপ এবং অভিনয় দক্ষতার কারণে। তার পরে কয়েকটি সিনেমার পরে তাঁদের আর সেইভাবে অভিনয় জগতে ফিরতে দেখা যায়নি। সময়ের সাথে সাথে এইভাবেই মিটে গিয়েছে অনেক প্রতিভাবান শিল্পীর অস্তিত্ব।