Categories
নিউজ

আগামী ২৪ ঘন্টায় কলকাতাসহ একাধিক জেলায় তুমুল ঝড়-বৃষ্টি, লাল সতর্কতা জারি হাওয়া অফিসের

রাজ্যে ফের নিম্নচাপের ভ্রুকুটি (Rain Forecast)। রাজ্যে বর্ষার অনুপ্রবেশ ঘটলেও বৃষ্টির ঘাটতি থেকেই গিয়েছে। আকাশ আংশিক মেঘলা থাকায় সেভাবে কোন ভারী বৃষ্টিপাত হয়নি। বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে বেড়েছে গুমোট গরম ও। ফলে স্বাভাবিকভাবেই বঙ্গবাসীর অস্বস্তি বেড়েছে। আর এরই মাঝে দেখা দিতে চলেছে নিম্নচাপের চোখরাঙানি (weather Update)। এমনটাই খবর দিল আলিপুর আবহাওয়া দপ্তর।

এবার দক্ষিণবঙ্গের একাধিক জেলা ভারী থেকে অতি ভারী বৃষ্টিতে ভিজতে চলেছে। জানা যাচ্ছে মধ্য বঙ্গোপসাগরে একটি নিম্নচাপ তৈরি হচ্ছে। নিম্নচাপটি উড়িষ্যা উপকূল সংলগ্ন এলাকাতে সোমবারের পর শক্তি বাড়াতে পারে। শক্তি বাড়িয়ে নিম্নচাপটি উড়িষ্যা ও বাংলা উপকূলের মাঝে স্থলভাগে প্রবেশ করতে পারে। যার জেরে রাজ্যে আবহাওয়ার ব্যাপক রদবদল লক্ষ্য করা যাবে। আগামী সোমবার থেকে রাজ্যের উপকূলবর্তী জেলাগুলিতে ৫০ কিমি বেগে ঝোড়ো হাওয়া বইতে পারে। এর সঙ্গে সঙ্গে মাঝারি থেকে ভারী বৃষ্টিরও সম্ভাবনা রয়েছে রাজ্যের বিভিন্ন জেলায়। ইতিমধ্যেই মৎস্যজীবীদের জন্য লাল সর্তকতা জারি করেছে আবহাওয়া দপ্তর। আজ অর্থাৎ শনিবার দক্ষিণবঙ্গের বিভিন্ন জেলায় আকাশ আংশিক মেঘলা থাকবে। কিছু কিছু জেলায় হালকা থেকে মাঝারি বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা রয়েছে। পূর্ব মেদিনীপুর,উত্তর ও দক্ষিণ ২৪ পরগনা জেলায় বৃষ্টিপাতের পরিমাণ বাড়তে পারে। মৌসুমী অক্ষরেখা বিকানির, কোটা, গুনা,জব্বলপুর, পেনড্রা রোড ও বালাসোর হয়ে পূর্ব মধ্য বঙ্গোপসাগর পর্যন্ত বিস্তৃত রয়েছে। এছাড়াও দক্ষিণ ভারতে রায়লসীমা, অন্ধ্রপ্রদেশ ইয়ানাম, তামিলনাড়, পুদুচেরি, কর্ণাটক, ছত্তিশগড় ও কচ্ছতে বৃষ্টির সম্ভাবনা বেশি রয়েছে।

আজ শনিবার কলকাতায় সর্বোচ্চ তাপমাত্রা থাকবে ৩৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস এর কাছাকাছি এবং সর্বনিম্ন ৮৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস এর কাছে। গতকাল কলকাতার সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল ৩৩.৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস। এবং সর্বনিম্ন ছিল ২৭.৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস। বাতাসে জলীয় বাষ্পের পরিমাণ ছিল সর্বাধিক ৯৪ শতাংশ। গত ২৪ ঘন্টায় কোনো বৃষ্টি হয়নি।সোমবার কার্যত মেঘলা আকাশ থাকবে গোটা দক্ষিণবঙ্গে জুড়ে। মঙ্গলবার পূর্ব মেদিনীপুর ও দক্ষিণ ২৪ পরগনা জেলায় ভারী বৃষ্টি হতে পারে। বুধবার পূর্ব পশ্চিম মেদিনীপুর, ঝাড়গ্রাম, উত্তর ও দক্ষিণ চব্বিশ পরগনা, হাওড়া, হুগলি ও কলকাতায় ভারী বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা রয়েছে।

Categories
নিউজ

আগামী কয়েকঘন্টার মধ্যে কলকাতা সহ এইসব জেলায় ঝেঁপে নামবে বৃষ্টি, জানাল হাওয়া অফিস

আগামী দুই থেকে তিন ঘন্টার মধ্যে কলকাতা এবং দুই ২৪ পরগনার জেলাগুলিতে বজ্রবিদ্যুৎ সহ বিক্ষিপ্ত বৃষ্টির সম্ভবনা রয়েছে। আবহাওয়া সূত্রে কিছুক্ষন আগে এইরকমই পূর্বাভাস পাওয়া গিয়েছে।

আগামী কয়েকদিনে কলকাতাতে তেমনভাবে ভারী বৃষ্টি হয়নি। তার উপরে সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত রোদের তেজ ভালো ভাবেই ছিল। বিকেলের দিকে মাঝে মধ্যে হালকা থেকে মাঝারি বৃষ্টিপাত হয়েছে। তবে তাতে গরম থেকে স্বস্তি মেলেনি শহরবাসীর। আজকেও কলকাতার আকাশে রোদ এবং মেঘের লুকোচুরি খেলা বর্তমান ছিল। কখনো আকাশে মেঘের ঘনঘটা দেখা গিয়েছে আবার কখনো সূর্যের তেজে নাজেহাল হয়েছে শহরবাসী। তবে তাপমাত্রা সেইভাবে বৃদ্ধি পাইনি। আপেক্ষিক আদ্রতার দরুন ভ্যাপসা গরম রয়েই গিয়েছে।

শুক্রবার শহরের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা থাকবে ৩৩ ডিগ্রির আশেপাশে এবং সর্বনিম্ন তাপমাত্রা থাকবে ২৭ ডিগ্রির কাছাকাছি। বাতাসে আদ্রতার পরিমান সবচেয়ে বেশি থাকবে ৮৯ শতাংশ এবং সবচেয়ে কম ৬০ শতাংশের কাছাকাছি। অন্যদিকে উত্তরবঙ্গের জেলাগুলিতে সময়ের আগেই বর্ষা চলে এসেছে। এখন শিলিগুড়ি ,কোচবিহার ,আলিপুরদুয়ার সহ বেশ কিছু জেলাতে প্রায় প্রতিদিনই মাঝারি থেকে ভারী বৃষ্টিপাত হচ্ছে। জুন মাসে অন্যান্য বারের থেকে প্রায় ৫০ শতাংশ বেশি বৃষ্টি হছে। অন্যদিকে দক্ষিণবঙ্গে কমেছে বৃষ্টিপাতের পরিমান।

আগের বারের তুলনায় দক্ষিণবঙ্গে প্রায় ৫০ শতাংশ বৃষ্টির পরিমানে কমে গিয়েছে। জুন মাসেও তেমনভাবে বৃষ্টির দেখা নেই কলকাতায়। একই অবস্থা দক্ষিণবঙ্গের বাকি জেলাগুলোতেও। এই কারণে দক্ষিণবঙ্গের জেলাগুলিতে বাড়ছে গরমের দাবদাহ। এই ক্ষনিকের বৃষ্টি গরম থেকে কিছু সময়ের জন্য স্বস্তি দিলেও দীর্ঘমেয়াদি গরম থেকে বাঁচার জন্য প্রয়োজন ভারী বৃষ্টিপাত। আবহাওয়া দফতরের এই বৃষ্টির পূর্বাভাসে এখন আশায় বুক বাঁধছে শহরবাসী। তবে বৃষ্টির পূর্বাভাসের সাথে সাথে এই সময় সবাইকে নিরাপদ স্থানে থাকার নির্দেশও দিয়েছে আবহাওয়া দফতর।