May 20, 2024

ডিম একটি সুস্বাদু এবং পুষ্টিকর খাবার। ডিমের যেকোনো পদ বাঙালির খুব প্রিয়। অন্যদিকে মাছ মাংস প্রিয় ভোজনরসিক বাঙালির প্রিয় পদের তালিকায় আলুপোস্তও রয়েছে । তবে আলুর সাথে ছাড়া ডিমের সাথেও পোস্তর যুগলবন্দিতে খাওয়া জমে যাবে।

উপকরণ :
১. ডিম
২. পোস্ত
৩. কাঁচালঙ্কা
৪. পেয়াঁজ
৫. আদা
৬. রসুন
৭. দারচিনি
৮. লবঙ্গ
৯. এলাচ
১০. সর্ষের তেল

প্রণালী :

রান্নার শুরুতে ৪ থেকে ৫টি ডিমকে ভালো করে সেদ্ধ করে নিতে হবে। এর পরে একটি কড়াইতে ২ থেকে ৩ চামচ সর্ষের তেল গরম করে নিতে হবে। তেল যতক্ষণ না পর্যন্ত গরম হচ্ছে ততক্ষণ সেদ্ধ করে রাখা ডিমগুলিকে মাঝখান থেকে চিরে অর্ধেক করে নিতে হবে। এইবারে তেল গরম হয়ে গেলে এর মধ্যে কেটে রাখা ডিমগুলিকে দিয়ে মাঝারি আঁচে হালকা করে ভেজে নিতে হবে। ডিমগুলির দুইদিক ভালো করে ভাজা হয়ে গেলে তুলে নিতে হবে।

এর পরে ফোড়নের জন্য দিয়ে দিতে হবে ২টি দারচিনি , ৩টি লবঙ্গ এবং ৩টি এলাচ। ফোড়ন থেকে হালকা সুগন্ধ বেরোতে থাকলে দিয়ে দিতে হবে ২টি মাঝারি আকারের পেয়াঁজ কুচি। এর পরে এর মধ্যে দিয়ে দিতে হবে টুকরো করে কেটে রাখা ১/২ ইঞ্চি আদা এবং ৩টি রসুন। অল্প একটু লবণ দিয়ে ভালো করে পেয়াঁজ ভেজে নিতে হবে যতক্ষণ না পর্যন্ত সেটি নরম হয়ে আসে। অন্যদিকে একটি মিক্সিতে আগে থেকে থেকে ভিজিয়ে রাখা পোস্ত, ১টি কাঁচালঙ্কা ,সামান্য নুন এবং অল্প জল দিয়ে ভালো করে একটা পেস্ট তৈরী করে নিতে হবে। এর পরে কড়াইতে ভাজা পেয়াঁজের মধ্যে দিয়ে দিতে হবে পোস্ত বাটা।

পোস্তর কাঁচা গন্ধ চলে গেলে গিয়ে যখন একটি ক্রিমের মতো রং হবে তখন ভেজে রাখা ডিমের টুকরোগুলোকে দিয়ে দিতে হবে। স্বাদমতো লবণ দিয়ে ভালো করে মিশিয়ে নিতে হবে। এর মধ্যে হলুদ গুঁড়ো এবং লংকার গুঁড়ো দিয়েও রান্না করা যাবে। তবে এই ক্ষেত্রে ব্যবহার না করলেও স্বাদ হবে দুর্দান্ত। পোস্তর সাথে ডিমগুলিকে ভালো করে মিশিয়ে অল্প একটু জল দিয়ে দিতে হবে।

জল যখন ভালো করে ফুটতে শুরু করবে তখন আঁচটাকে কমিয়ে কড়াইয়ের ঢাকা বন্ধ করে দিতে হবে। ৫ মিনিট এইভাবে রান্না করলেই তৈরী হয়ে যাবে অসাধারণ ডিম পোস্ত।