×
Categories
বিনোদন

ফুটপাত থেকে মহাগুরুর রাজপ্রাসাদ! সিনেমার গল্পকে হার মানাবে মিঠুন চক্রবর্তীর দত্তক কন্যার জীবন কাহিনী

Advertisement

সিনেমা জগতের অন্যতম দয়ালু মানুষ হিসেবে খ্যাত মিঠুন চক্রবর্তী (Mithun Chakrabarty) । অভিনয় তো বটেই বরং তাঁর মানসিকতার জন্য মানুষের মনে জায়গা করে নিয়েছেন বাংলার গর্ব মিঠুন। মিঠুন চক্রবর্তীর তিন পুত্র এবং এক কন্যা। জানেন কি মিঠুন কন্যা দিশানী চক্রবর্তী (Dishani Chakraborty) তাঁর নিজের সন্তান নয়। মেয়েটিকে একটি ডাস্টবিনে কুড়িয়ে পেয়েছিলেন এই বিখ্যাত অভিনেতা। সন্তান স্নেহে মেয়েকে ছোট থেকে বড় করে তুলেছেন মিঠুন। তবে জানুন এর নেপথ্যে থাকা আসল কাহিনী।

Advertisement

মিঠুন চক্রবর্তী তাঁর অভিনয় ক্যারিয়ার শুরু করেছিলেন মৃণাল সেনের (Mrinal sen) “মৃগয়া”(Mrigoya) ছবির মধ্য দিয়ে। ছবিতে একজন আদিবাসী যুবকের চরিত্রে অভিনয় করে মিঠুন সবার নজর কাড়ে। এরপর বাংলা সিনেমা এক নতুন অধ্যায়ের সূচনা করেন মিঠুন চক্রবর্তী। বলিউডেও একাধিক হিট ছবি উপহার দিয়েছেন মিঠুন। তাঁর নাম হয় “ডিস্কো ডান্সার” (Disco Dancer)। দীর্ঘ জীবনে অসংখ্য পুরস্কার ও সম্মান পেয়েছেন তিনি। আজও স্বমহিমায় বিরাজ করছেন মহাগুরু। কলকাতায় একটি ডান্স রিয়েলিটি শো’র বিচারক হিসেবে দেখা যায় তাঁকে। মিঠুনের স্ত্রী অভিনেত্রী যোগিতা বালি (Yogeeta Bali)। তাঁদের তিন পুত্র মহাক্ষয় (Mahakshay Chakraborty) , উষ্মে (Ushmey Chakraborty), নামাসি (Namashi Chakraborty) এবং এক কন্যা দিশানী চক্রবর্তী। এরই মধ্যেই ছেলের বিয়ে দিয়ে ঘরে বৌমাও এনেছেন মিঠুন। মিঠুনের তিন ছেলেকে বাবার মতন অভিনয় জগতে দেখা গেলেও তেমন সফলতা লাভ করতে পারেননি। তবে ছেলেমেয়েদের উচ্চ শিক্ষায় শিক্ষিত করেছেন তিনি।

Advertisement
আরো পড়ুন -  ফুটপাত থেকে রাজপ্রাসাদ মিঠুন চক্রবর্তীর দত্তক কন্যা দিশানীর জীবন কাহিনী হার মানাবে সিনেমার গল্পকেও

মিঠুনের মেয়ে দিশানী চক্রবর্তী রূপে লক্ষ্মী গুণে সরস্বতী। বর্তমানে সে নিউ ইয়র্কের একটি থিয়েটার কোচিং ইনস্টিটিউটে পড়াশোনা করছে। তাঁর ইচ্ছে বাবার মতোই সিনেমা করার। একবার একটি শো করতে যাওয়ার সময়, রাস্তার ডাস্ট বিনের ধারে একটি বাচ্চার ক্রমাগত কান্নার আওয়াজ শুনতে পান মিঠুন। তিনি ডাস্টবিনের কাছে গিয়ে দেখেন একটি ফুটফুটে মেয়েকে কেউ ফেলে রেখে চলে গেছে। সদ্যোজাত শিশুটিকে ডাস্টবিন থেকে উদ্ধার করে তার সেবা শুশ্রূষা করে বাড়িতে নিয়ে যান মিঠুন। এরপর তাকে নিজের মতন মানুষ করেন মিঠুন ও যোগিতা। মেয়ের নাম দেন দিশানি। বাবা-মায়ের এই সিদ্ধান্তে কোন আপত্তি জানায়নি তার তিন ছেলে। বরং বোনকে আপন করে নিয়েছিলেন তাঁরা। দিশানি বড় হয়ে পড়াশোনা শেখে পছন্দ মত বিদেশে পড়াশোনা করতে যায়। এবার মিঠুন কন্যার ইচ্ছে সে একজন বড় অভিনেত্রী হবে।

আরো পড়ুন -  ফুটপাত থেকে রাজপ্রাসাদ, সিনেমার গল্পকেও হার মানাবে মিঠুনের দত্তক কন্যার জীবনকাহিনী

মিঠুন চক্রবর্তীর এই মহানুভবতার কথা শুনে আপ্লুত তাঁর ভক্তরা। তবে শুধু একটি নাম পরিচয়হীন মেয়েকে মানুষ করাই নয়। মিঠুন নিজে বহু অসচ্ছল পরিবারকে নিরবে সাহায্য করে যান। তাঁর এই কোমল স্বভাবের জন্য সবার কাছে প্রিয় তিনি।

আরো পড়ুন -  দুধ সাদা বিকিনির মধ্য দিয়ে উঁকি দিচ্ছে বক্ষ, নেটদুনিয়ায় ফের ঝড় তুললেন অভিনেত্রী উর্ফি জাভেদ
Advertisement