×
Categories
বিনোদন

রাইফেল দিয়ে ভেঙেছিলেন ডোনার বাড়ির কাঁচ, ‘দাদাগিরি’-র মঞ্চে অকপট সৌরভ

Advertisement

জি বাংলার অন্যতম জনপ্রিয় রিয়েলিটি শো ‘দাদাগিরি’ তে সব সময়ই যেন লেগে রয়েছে এক নিত্যনতুন চমকের হাতছানি। এই শো তে সঞ্চালনা করেন বিসিসিআইয়ের প্রেসিডেন্ট সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়(Sourav Ganguly)। একটা সময় ছিল যখন নাচ মানেই মহারাজের কাছে যেন একটা ভয়ের বিষয়, কিন্তু এখন নায়িকাদের সঙ্গে সমান দমে পা মেলান তিনি। সম্প্রতি দাদাগিরির মঞ্চে হাজির হয়েছিলেন নতুন ছবি ‘মুক্তির’ গোটা টিম। খেলা, আড্ডা, নাচ সব নিয়ে জমে উঠেছিল মঞ্চ। যেখানে দুই সুন্দরী দিতিপ্রিয়া (Ditipriya Roy) এবং চিত্রাঙ্গদা (Chitrangada) এদের সাথে সালমানের গান ‘ সোয়াগ সে করেঙ্গে সবকা স্বাগত’ তে কোমর দুলিয়ে ছিলেন মহারাজ। যা এক নিমেষেই মুঠোফোনে বন্দী করেছিলেন চিত্রাঙ্গদা দের কো-স্টার অর্জুন চক্রবর্তী (Arjun Chakraborty)।

Advertisement
আরো পড়ুন -  একই মঞ্চে সৌরভের সাথে আপনার পছন্দের সমস্ত তারকা! কোথায়? কখন? কেন? রইল বিস্তারিত

দাদাগিরির মঞ্চে দিতিপ্রিয়ার সাথে সাথে আমাদের মহারাজ ও খুনসুটিতে মেতে উঠেছিলেন। দিতিপ্রিয়ার কাছে মহারাজের প্রশ্ন ছিল, টেলিভিশন থেকে রুপোলি পর্দা সবেতেই এক পরিচিত মুখ তিনি। বাড়িতে কি তিনি মায়ের শাসনে থাকেন? মহারাজের প্রশ্ন শুনে অভিনেত্রী হেসে বলেছিলেন, ‘রক্ষে করো রঘুবীর ‘। অভিনেত্রী জানান এখনো দুমাস অন্তর মায়ের হাতের মার খেয়ে ঠান্ডা থাকেন তিনি। এর পাশাপাশি তিনি ‘দাদা ‘ র কাছে প্রশ্ন রাখেন ছোটবেলার এমন অভিজ্ঞতা তাঁর ও রয়েছে কিনা।

Advertisement

জবাবে মহারাজ জানান, শুধুমাত্র তাঁর মা নন গোটা পরিবার তাঁর দুষ্টমিতে নাজেহাল হয়েছে। এক মজাদার ঘটনা দাদাগিরির মঞ্চে ফাঁস করতে গিয়ে ‘দাদা ‘ বলেন তাঁর ম্যাডাম ডোনা গঙ্গোপাধ্যায় ও সেই গল্পের সঙ্গে জড়িয়ে আছেন। সৌরভ বলেন খুব অল্প বয়সে যখন তার ম্যাডামের সঙ্গে আলাপ ছিল না, তখন তিনি ও তাঁর কাকার ছেলে মিলে প্রতিবেশীর বাড়ির সুন্দর করে লাগানো কাঁচ খেলনা বন্দুকের গুলিতে ভেঙে গুঁড়িয়ে দিয়েছিলেন। দুর্ভাগ্যবশত সেই দিনে তাঁদের সন্ধ্যা বেলাতে মানালি ঘুরতে যাওয়ার কথা ছিল। তাঁর এই কীর্তির কথা ডোনার বাড়ির এক বয়স্কা ব্যক্তি তাঁর বাবার কাছে ফাঁস করে দিয়েছিলেন। আর তারপরের পনের মিনিট তাঁর সঙ্গে যা ঘটেছিল তা সৌরভের জীবনের ইতিহাস যা তাঁকে মানালিতেও তাড়া করে বেরিয়েছিল। তাঁর এই দুষ্টুমি ভরা ছোটবেলার কান্ড কারখানা শুনে মঞ্চের সবাই হেসে লুটোপুটি খেয়েছিলেন। এরই পাশাপাশি তিনি আরো জানিয়েছিলেন যে ছোটবেলায় পড়াশোনায় কম ফাঁকিবাজ ছিলেন না।

Advertisement