×
Categories
অফবিট

‘গৃহবধূ’ থেকে ‘জিম ট্রেনার’, মহিলা হয়েও ৪৭ বছর বয়সে ৬ প্যাক, জানুন কিরনের জীবন সংগ্রামের কাহিনী!

Advertisement

কথাই বলে ইচ্ছে থাকলেই উপায় হয়। নিজের চেহারা বদলে পুরো লুকটাই চেঞ্জ করে দিলেন এক সাধারন ঘরের গৃহবধূ। এখন তিনি একজন মহিলা ফিটনেস ট্রেনার। নিজের বাড়িতেই বানিয়ে ফেলেছেন জিম। তার সিক্স প্যাক অ্যাবস হার মানাবে পুরুষদের। কিন্তু কিভাবে এমন অসম্ভবকে সম্ভব করলেন তিনি? যে শুধুমাত্র নিজের সন্তান পালন আর হেঁসেল ছাড়া কিছুই বুঝতেন না।

Advertisement

1999 সালে বিয়ে হয়েছে কিরণ দেম্বলার। মধ্যবিত্ত পরিবার তাই বাবা মায়ের উপর কন্যাদায় ছিল। ভালো ছেলে দেখেই তাকে পাত্রস্থ করা হয়। সব ঠিকঠাক চলছিল। 2003 সালে কন্যা সন্তানের মা হন কিরণ। তার দুই বছর পর পুত্র সন্তান আসে তার কোল আলো করে। এরপর একেবারে ছাপোষা গৃহিণী হয়ে ওঠেন কিরণ। স্বামী-সন্তানের দেখাশোনা, শ্বশুর-শাশুড়ি যত্ন বাড়িতে অতিথি আপ্যায়ন কোন কিছুতেই ত্রুটি রাখতে না তিনি। যাকে বলে একেবারে পরিপূর্ণ গৃহিণী। শশুর বাড়ির সকলে কিরণ বলতে অজ্ঞান। কিন্তু এই সুখ বেশিদিন সইল না। ছাদ থেকে পড়ে গিয়ে মাথায় চোট পেলেন। মাথায় রক্ত জমাট বেধে গেল।

Advertisement
আরো পড়ুন -  খোলামেলা পোশাকে উদ্দাম নাচ দুই যুবতীর, ভাইরাল ভিডিও

যদিও খুব সিরিয়াস কিছু না হওয়ায় চিকিৎসক বলেছিলেন ওষুধেই সেরে যাবে। নিয়মিত ওষুধ খেতে হতো। মাঝে মধ্যে মাথা যন্ত্রণায় ফেটে পড়ত। কিন্তু তা সত্বেও বাড়ির মানুষগুলোর মুখের দিকে তাকিয়ে কিরণ শক্ত থাকতে। করা ওষুধ আর ভিটামিন খেলে ওজন বেড়ে যাচ্ছিল কিরনের। তখন অনেকটা সুস্থ হয়ে উঠেছেন। স্থির করলেন এবার দৈহিক ওজন কমাতে হবে নইলে আরো বাসা বাঁধবে রোগ। তাই বাড়ির কাছে একটি জিমে ভর্তি হলেন। প্রতিদিন তিন ঘন্টা জিমে কসরত করতেন। সকাল-সন্ধ্যায় নিয়ম করে প্রাণায়াম ফ্রি-হ্যান্ড এক্সারসাইজ করতেন। মাত্র তিন মাসের মধ্যেই 74 কেজি থেকে 52 কেজি। শুনে অবাক সকলে। কিরনের বেশ কয়েকটি ফিটনেস ভিডিও ভাইরাল হয় সোশ্যাল মিডিয়ায়। এরপর সে স্থির করে একটি ফিটনেস সেন্টার খুলবে।

আরো পড়ুন -  চাকরি থেকে ফিরে ক্লান্ত হয়ে পড়তেন যুবতী, এই কারণেই প্রেমিকের জন্য বিকল্প ব্যবস্থা করলেন!

বর্তমানে একটা থেকে তিন তিনটি সেন্টার খুলে ফেলেছে কিরণ। এখন তার জিমে যাতায়াত করেন বাহুবলী পরিচালক রাজামৌলি থেকে অভিনেত্রী তামান্না ভাটিয়া। সকলে কিরনের কাছ থেকে সুস্থ থাকার প্রশিক্ষণ নেন। নিজের জিমে জায়গা দিতে পারেনা কিরণ। সকাল সন্ধা বাড়ির কাজ সামলে ছাত্র-ছাত্রীদের দেখভাল করতে হয় তাকে। একজন সাধারণ গৃহবধু থেকে অসামান্যা হয়ে ওঠার কাহিনী কিরণ দেম্বলার।

আরো পড়ুন -  ৫০০ টাকা খুচরো করতে গিয়ে ভাগ্য বদল, লটারির টিকিট কেটে বিকেলে ১২ কোটির মালিক রংমিস্ত্রি!
Advertisement