×
Categories
অফবিট

ছেলের উচ্চ শিক্ষার জন্য বাড়ি বিক্রি করেছিলেন বাবা, IPS অফিসার হয়ে সেই বাড়ি কিনে উপহার দিল ছেলে

Advertisement

ছেলে-মেয়েদের উজ্জ্বল ভবিষ্যতের জন্য কঠোর পরিশ্রম করেন বাবা-মায়েরা। নিজেদের কথা না ভেবে সন্তানদের সুবিধাকে সর্বোচ্চ প্রাধান্য দেন তারা। ঠিক এমনই একটি ঘটনার সাক্ষী থাকলো বিহার। বিহারের গোপালগঞ্জের বাসিন্দা প্রদীপ সিংহ মাত্র ২২ বছর বয়সে দেশের সবচেয়ে কঠিন পরীক্ষা ইউপিএসসিতে ৯৩ স্থান অর্জন করেছিলেন সারা দেশে।

Advertisement

দেশের সবচেয়ে কঠিন পরীক্ষা গুলির মধ্যে ইউপিএসসি পরীক্ষা অন্যতম। এই পরীক্ষাটিতে মোট তিনটি পর্যায়ে থাকে। এই পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হতে হলে করতে হয় কঠোর পরিশ্রম। যে সকল পরীক্ষার্থী এই পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হন তাদের কেউ কেউ কালেক্টর, এসপি, গেজেটেড অফিসার, আইপিএস অফিসার হয়ে থাকেন।

আরো পড়ুন -  ১ কোটি টাকার চাকরি ছেড়ে শুরু করেন নিজের কসমেটিক ব্র্যান্ড, আজ সেই ব্যবসার ১০০ কোটি টার্নওভার!

বর্তমানে বিহারের প্রদীপ সিংহ এখন আইপিএস অফিসার পদে নিযুক্ত। তবে তার এই জয়যাত্রার পথে ছিল অসংখ্য বাধা। শৈশব থেকেই মেধাবী ছাত্র হিসেবে পরিচিত ছিল প্রদীপ। পড়াশোনার প্রতি তার আগ্রহ বরাবরই একটু বেশি। ছেলের পড়াশোনায় যাতে কোনো বাঁধা না আসে তার জন্য আপ্রাণ চেষ্টা করে গিয়েছেন প্রদীপের বাবা-মা।

Advertisement
আরো পড়ুন -  জন্মান্ধ হয়েও আজ কোটি টাকার মালিক, বেকারদের জন্য খুলেছেন কোম্পানি, শ্রীকান্তের জীবন হার মানাবে সিনেমার গল্পকে

চলতি বছর জুন মাসে ইউপিএসসি পরীক্ষার প্রস্তুতির জন্য দিল্লি গিয়েছিলেন প্রদীপ। প্রদীপের এই স্বপ্ন পূরণ করতে নিজেদের বাড়ি বিক্রি করে দিয়েছিলেন তার বাবা।নিজেদের আর্থিক অবস্থা সচ্ছল না হলেও তার আঁচ কখনোই প্রদীপের স্বপ্নে আসতে দেননি তার বাবা মা। নিজের এই স্বপ্ন সফল হওয়ার পর তার সাফল্যের জন্য বাবা-মার অবদানকে তিনি সর্বোচ্চ প্রাধান্য দেন। তিনি জানান, তার বাবা-মায়ের অক্লান্ত পরিশ্রম ও প্রার্থনার ফলস্বরূপ তার এই সাফল্য। প্রদীপের এই কঠোর পরিশ্রম ও নিষ্ঠা উজ্জ্বল করেছে তার বাবা-মায়ের মুখ।

আরো পড়ুন -  নেই স্বামী, মাস্টার ডিগ্রী অর্জন করেও মেলেনি চাকরি, অভিনব উপায়ে সংসার চালাচ্ছেন এই গৃহবধূ!
Advertisement