×
Categories
অফবিট

৫০০ টাকা খুচরো করতে গিয়ে ভাগ্য বদল, লটারির টিকিট কেটে বিকেলে ১২ কোটির মালিক রংমিস্ত্রি!

Advertisement

একেই বলে রাতারাতি লক্ষ্মী লাভ। কার কখন ভাগ্য বদলে যায় কেউ বলতে পারে না। যেমনটা হয়েছে কেরালার বাসিন্দা পেশায় রাজমিস্ত্রি সদানন্দ ওলিপরম্বিলের সঙ্গে। বছর 65 এই পৌঢ় এখন কোটি কোটি টাকার মালিক। কারণ তিনি লটারি পেয়েছেন। তাও আবার টাকা খুচরো করতে গিয়ে। এই ঘটনার কথা শুনে চক্ষু চড়কগাছ নেটিজেনের।

Advertisement

কেরলের অরুপও গ্রামে বসবাস করেন। দিন আনা দিন খাওয়া মানুষ, প্রায় 30 বছর ধরে রাজমিস্ত্রির কাজ করছেন। কখনো দুবেলা দুমুঠো ভাত জোটে আবার কখনও এক বেলা অভুক্ত থাকতে হয়। এমনই একজন মানুষ হাতে 500 টাকা নিয়ে গিয়েছিলেন বাজারে। অনেকদিনের আটকে থাকা টাকা হাতে পেয়েছেন। গরীব হলেও মেজাজটাই তো আসল রাজা। কিন্তু 500 টাকা নিয়ে পড়লেন মহা বিপদে। কেউ টাকা ভাঙ্গাতে চায় না।

আরো পড়ুন -  গোয়াল ঘরেই পড়াশোনা, কঠিন সময় পেরিয়ে হাইকোর্টের বিচারপতি হলেন দুধওয়ালার এই মেয়েটি

এরপর বাধ্য হয়ে লটারির দোকানে চলে গেলেন। এর আগে টাকা ভাঙ্গানোর দরকার পড়লেই ছুটে যেতেন লটারির দোকানে।তবে কোনো ভাগ্যে তার ভাগ্যে শিকে ছিরত না। এবারেও একপ্রকার অনিচ্ছা বসত লটারি কেটে ফেললেন। সেদিন বিকেলে একটু ভাতঘুম দিয়েছেন। এমন সময় বাড়ির সামনে লোকজনের চেঁচামেচি। হতদরিদ্র সদানন্দ নাকি লটারি পেয়েছেন। প্রথমটাই নিজেই বিশ্বাস করতে পারেননি তারপর লটারি টিকিটের সঙ্গে নম্বর মিলিয়ে মাথায় হাত বৃদ্ধের। 1কোটি নয় একেবারে 12 কোটি। ভাবতেই হাত পা ঠান্ডা হয়ে আসে। বাড়ির সদস্যদের কথা জানিয়ে ছুটে গেলেন থানাতে। সেখানে তাকেই সব রকম নিরাপত্তা দেওয়া হবে বলে আশ্বাস দেওয়া হয়। এদিকে দরিদ্র সদানন্দ এখন রাজার সমান। আয়কর দপ্তরের ট্যাক্স কেটে মোট সাড়ে সাত কোটি টাকা হাতে পাবেন তিনি। ছেঁড়া কাঁথায় শুয়ে লাখ টাকার স্বপ্ন দেখলে মন্দ কি?

Advertisement
আরো পড়ুন -  বাড়ি বিক্রি করেছিলেন ছেলেকে পড়ানোর জন্য, ছেলে IPS অফিসার হয়ে সেই বাড়ি উপহার দিল বাবাকে
Advertisement